বিশ্বকাপের পতাকা বেচে বাড়তি আয়
[x]
[x]
ঢাকা, শনিবার, ৩ ভাদ্র ১৪২৫, ১৮ আগস্ট ২০১৮
bangla news

বিশ্বকাপের পতাকা বেচে বাড়তি আয়

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০৫-১৪ ১১:৩৪:২৭ এএম
বিশ্বকাপ সামনে রেখে পতাকা ফেরি করছেন মনির খান

বিশ্বকাপ সামনে রেখে পতাকা ফেরি করছেন মনির খান

চট্টগ্রাম: দরজায় কড়া নাড়ছে ফিফা বিশ্বকাপ। ব্রাজিল-আর্জেন্টিনাসহ বিভিন্ন দেশের কড়া সমর্থকদের বাসা-বাড়ির ছাদে, গাছের মগডালে উড়ছে পতাকা। পতাকার চাহিদাকে পুঁজি করে মৌসুমি ফেরিওয়ালারা চষে বেড়াচ্ছেন অলিগলি।

নগরের বন্দর থানার কাস্টম মোড়ে একটি বাঁশের সঙ্গে ঝুলিয়ে পতাকা ফেরি করছেন মনির খান। সবার শীর্ষে লাল-সবুজের বাংলাদেশের পতাকা। তারপর আর্জেন্টিনা আর ব্রাজিলের।

মনির বললেন, আগামী ১৪ জুন রাশিয়ায় শুরু হচ্ছে বিশ্বকাপ ফুটবল। সেই উন্মাদনা এখনি শুরু হয়ে গেছে তরুণদের মধ্যে। আমার মনে হয় ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার সমর্থকই বেশি। এ দুই দেশের পতাকাই বেশি বিক্রি হচ্ছে। মূলত ঢাকার পর চট্টগ্রামেই সবচেয়ে বেশি পতাকা বিক্রি হয়।  

তিনি জানান, বশির, ইব্রাহিম, রেজাউলসহ আট বন্ধু ঢাকা থেকে পাইকারি দামে পতাকা কিনে চট্টগ্রামে এসেছেন বিক্রির জন্য। সবাই মিলে একটি বাসা ভাড়া নিয়েছেন। সারাদিন অলিগলি ঘুরে পতাকা বিক্রি করেন।

মনির বলেন, পতাকা ফেরির কাজটি প্রথম করছি। কাপড়ের মান, আকার বুঝে দাম। ১০ টাকা থেকে শুরু। ৩৫০ টাকার পতাকাও আছে। এর চেয়ে বড় হলে নিজেরা কাপড় কিনে দর্জির দোকানে তৈরি করতে হবে।  

বাড়িতে পাঁচ বছরের এক ছেলে আছে মনিরের। স্ত্রী কাজ করেন পোশাক কারখানায়। প্রথম দফায় ২০ হাজার টাকার পতাকা এনেছেন মনির। বিক্রি বেশি হলে বিকাশে টাকা পাঠিয়ে আরও পতাকা আনবেন তিনি।  

ঝড়-বৃষ্টি আর বৈরী আবহাওয়ার কারণে আশানুরূপ বিক্রি না হলেও লোকসান নেই জানিয়ে মনির বলেন, ‘বৃষ্টি এলে প্লাস্টিকের থলেতে সব পতাকা ভরে ফেলি। যতক্ষণ মন চায় হেঁটে বেড়াই। ক্লান্ত হলে একটু জিরিয়ে নিই। অন্য যেকোনো কাজের চেয়ে পতাকা ফেরিতে কষ্ট কম।’

বাংলাদেশ সময়: ১১১৬ ঘণ্টা, মে ১৪, ২০১৮
এআর/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa