[x]
[x]
ঢাকা, রবিবার, ৩১ ভাদ্র ১৪২৫, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮
bangla news

‘এত উন্নয়নের পরও অন্য প্রতীকে কেন ভোট দেবেন ?’

চট্টগ্রাম প্রতিদিন ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৮-০১-১২ ৮:১৭:২৮ এএম
ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

চট্টগ্রাম: উন্নয়নের সঠিক তথ্য পৌঁছাতে পারলে জনগণ নৌকা ছাড়া আর কোথাও ভোট দেবে না বলে মন্তব্য করেছেন নগর যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ফরিদ মাহমুদ।

শুক্রবার (১২ জানুয়ারি) নগরীর রামপুর ওয়ার্ডে সরকারের প্রচারপত্র বিতরণের সময় তিনি একথা বলেন।

ফরিদ মাহমুদ বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশে উন্নয়নের যে কর্মযজ্ঞ শুরু করেছেন তা দেশকে কয়েক দশক এগিয়ে দেবে।  বর্তমান সরকারের উন্নয়নের সঠিক তথ্য জনগণকে জানাতে পারলে নৌকা ছাড়া অন্যরা ভোট পাবে না।

চট্টগ্রামের উন্নয়নে সরকারের কর্মকাণ্ড তুলে ধরে তিনি বলেন, ৩১৮ কোটি টাকা ব্যয়ে মুসলিম হল থেকে ডিসি হিল পর্যন্ত পূর্ণাঙ্গ সাংস্কৃতিক কমপ্লেক্স হবে।  কর্ণফুলীতে টানেল হচ্ছে।  নদীর দুইপাড়ে জেগে উঠছে সম্ভাবনা।  এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে হচ্ছে।  শহরে যানজট থাকবে না।  জলাবদ্ধতা নিরসনে সাড়ে পাঁচ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প বাস্তবায়নের পথে।  কালুরঘাটে একটি রেল-সড়ক সেতু হবে।  দক্ষিণ চট্টগ্রামের সঙ্গে যোগাযোগ অনেক সহেজ হয়ে যাবে।

‘পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত কয়েক বছরের মধ্যে বদলে যাবে।  দোহাজারি থেকে ঘুমধুম পর্যন্ত রেললাইন হচ্ছে।  এতে রেল যোগাযোগ ও আন্ত:দেশীয় বাণিজ্যের এক বিশাল দুয়ার খুলে যাচ্ছে। ’

উন্নয়নের ফিরিস্তি তুলে ধরে ফরিদ মাহমুদ বলেন, ‘এত উন্নয়নের পরও নৌকা ছাড়া অন্য কোন প্রতীকে জনগণ কেন ভোট দেবে ? জনগণের উপর আমাদের আস্থা আছে।  জনগণের ভালোবাসায় বারবার নৌকা জয়ী হয়েছে।  আগামী নির্বাচনেও হবে। ’

রামপুর ওয়ার্ডের মাদার্য্যাপাড়া জামে মসজিদে জুমার নামাজের পর প্রচারপত্র বিলি ও গণজমায়েতে উপস্থিত ছিলেন মসজিদ পরিচালনা কমিটির মোতোয়াল্লি হাজী আমির উল্লাহ, নগর আওয়ামী লীগ নেতা জহির উদ্দিন বাবর, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক সদস্য আকরাম হোসেন সবুজ, সমাজসেবক হাজী মফিজুর রহমান, হাজী আবদুর রহিম ভূঁইয়া, মোহাম্মদ হোসেন মেম্বার, নাজির মিয়া, আবুল কালাম, নাছির উদ্দিন, নগর যুবলীগের সদস্য এস এম সাঈদ সুমন, সাইফুর রহমান পলাশ, শেখ নাছির আহমেদ, দেলোয়ার হোসেন দেলু এবং নগর যুবলীগ নেতা আশরাফুল গণি।

এর আগে মসজিদে প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর আত্মার শান্তি কামনায় মিলাদ ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। এতে যুবলীগ নেতাদের সঙ্গে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক মনজুরুল আলম দুলাল, ইমাম মাওলানা ছালেহ আহমেদ, মোয়াজ্জিন মাওলানা নাজিম উদ্দিন উপস্থিত ছিলেন। 

এরপর উপস্থিত লোকজনের হাতে ‘উন্নয়নের দীপ্তশিখা, জননেত্রী শেখ হাসিনা’ শীর্ষক প্রচারপত্র তুলে দেওয়া হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৯০৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১২, ২০১৮

আরডিজি/টিসি

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa