ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ আশ্বিন ১৪২৪, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭

bangla news

চমেকে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল করছে চসিক

আল রাহমান, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০৯-১৩ ৮:০১:৩৭ পিএম
চমেকের জন্য বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালের প্রাথমিক নকশা

চমেকের জন্য বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালের প্রাথমিক নকশা

চট্টগ্রাম: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল হচ্ছে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) ক্যাম্পাসে। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) ৪২ লাখ টাকা প্রাক্কলিত ব্যয়ে ম্যুরালটি স্থাপনের লক্ষ্যে দরপত্র প্রক্রিয়া সম্পন্ন করছে।

চসিক সূত্রে জানা গেছে, চমেকের শিক্ষার্থীদের দাবির প্রেক্ষিতে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন গত ২০ আগস্ট চমেকে ম্যুরাল নির্মাণের অনুমোদন দেন। চমেকের মূল ফটকের বাম পাশে খালি জায়গায় দৃষ্টিনন্দন ভাবে স্থাপনের জন্য জায়গা পছন্দ করা হয়। এরপর চসিকের প্রকৌশল বিভাগ একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে ম্যুরালের প্রাথমিক নকশা সংগ্রহ করে। শুরু করে ইজিপি পদ্ধতিতে দরপত্র আহ্বানের প্রক্রিয়া। এক্ষেত্রে অভিজ্ঞ ও দায়িত্বশীল প্রতিষ্ঠানকেই কাজটি দিতে চায় চসিক।  

নাম প্রকাশ না করে চসিকের একজন কর্মকর্তা বাংলানিউজকে বলেন, ম্যুরালকে ঘিরে চমেক অধ্যক্ষের কার্যালয়ের দক্ষিণ পাশে আরও কিছু অবকাঠামো থাকবে। যাতে শিক্ষার্থীরা ম্যুরালের পাশে দাঁড়িয়ে বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে জানতে পারেন। জীবনী, ইতিহাস ইত্যাদি ম্যুরালে ফুটিয়ে তোলার পরিকল্পনা রয়েছে। তবে ম্যুরালটি টেরাকোটা বা পোড়ামাটি, সিরামিক, সিমেন্ট, ধাতব কোন মাধ্যমে তৈরি হবে তা এখনো চূড়ান্ত হয়নি।     

চমেকের ছাত্রনেতা আরমান উল্লাহ চৌধুরী বাংলানিউজকে বলেন, কলেজ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিধন্য এ ক্যাম্পাসে জাতির জনকের একটি ম্যুরাল স্থাপনের জন্য আমরা দীর্ঘদিন ধরে দাবি জানিয়ে আসছি। কিন্তু গণপূর্তের মাধ্যমে সরকারি কাজগুলো বাস্তবায়ন করতে অনেক সময় লেগে যায়। তাই নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনকে ছাত্রদের পক্ষে জোর দাবি জানাই। তিনি সানন্দে রাজি হন বঙ্গবন্ধুর একটি দৃষ্টিনন্দন ম্যুরাল চসিকের মাধ্যমে স্থাপনের জন্য। আশাকরি, দ্রুত সময়ের মধ্যে ম্যুরালটি নির্মাণের কাজ শুরু হবে।

তিনি বলেন, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গড়ে দু-আড়াই হাজার রোগী, তাদের অভিভাবক, শিক্ষক-শিক্ষার্থী, দর্শনার্থী মিলে হাজারো মানুষের আনাগোনা। এখানে যদি জাতির জনকের একটি ম্যুরাল থাকে তবে তারা বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে পারবে। সবচেয়ে বড় কথা, নবীন শিক্ষার্থীরা ভর্তির পর থেকেই প্রগতিশীলতার পাঠ নিতে পারবে, রগকাটার রাজনীতির ফাঁদে পা দেবে না।     

চমেক অধ্যক্ষ ডা. সেলিম মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর বাংলানিউজকে বলেন, ১৯৫৭ সালে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ উদ্বোধনের সময় তৎকালীন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী, স্বাস্থ্যমন্ত্রী ধীরেন্দ্রনাথ দত্তের সঙ্গে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানও উপস্থিত ছিলেন। আমাদের কাছে সেই ছবি সংরক্ষিত আছে। বলতে গেলে বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিধন্য মেডিকেল কলেজ এটিই। তাই এখানে জাতির জনকের একটি দৃষ্টিনন্দন ম্যুরাল স্থাপন অনেক আগেই করা উচিত ছিল। বঙ্গবন্ধুর আসল প্রতিকৃতিতে ম্যুরালটি যাতে নির্মিত হয় সে জন্য ছাত্ররা মেয়রের কাছে দাবি জানিয়েছেন। আশাকরি, শিগগির ম্যুরালটি তৈরির কাজ শুরু হবে।  

জামালখানে ৫৭০ বর্গফুটের পোড়ামাটির ম্যুরাল উদ্বোধন  

বাংলাদেশ সময়: ২০০১ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০১৭

এআর/টিসি

                                 

 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

FROM AROUND THE WEB
Loading...
Alexa