[x]
[x]
ঢাকা, শনিবার, ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১৮ নভেম্বর ২০১৭

bangla news

পানির নিচে কাঁচাবাজার

জমির উদ্দিন, ইউনিভার্সিটি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০৪-২১ ১২:০১:২২ পিএম
চকবাজারের কাঁচাবাজ‍ার পানির নিচে তলিয়ে গেছে। ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

চকবাজারের কাঁচাবাজ‍ার পানির নিচে তলিয়ে গেছে। ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

চট্টগ্রাম: টানা দুই ঘণ্টার বৃষ্টিতে পানির নিচে তলিয়ে গেছে নগরীর চকবাজারের কাঁচাবাজার। জলাবদ্ধতার কারণে অন্যান্য দিনের মতো সবজির পসরা নিয়ে বসতে পারেননি ব্যবসায়ীরা। বৃষ্টির পানিতে ভেসে গেছে অনেক সবজি। নগরীর অন্যান্য বাজারেও বৃষ্টির কারণে ক্রেতাদের আনাগোনা ছিল কম। ফলে বাজারদর ছিল উর্দ্ধমুখী।

শুক্রবার (২১ এপ্রিল) নগরীর চকবাজার, কাজীর দেউড়ি, বহদ্দারহাট কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা গেছে এমন চিত্র।  

চকবাজার কাঁচাবাজারে ব্যবসায়ী আবুল কালাম বাংলানিউজকে বলেন, গতকাল রাতে বেশ কয়েক মণ সবজি নিয়ে আসি। কিন্তু পানিতে অনেক সবজি তলিয়ে গেছে। রাস্তা এত উঁচু করার পরও যে পানি উঠবে তা কল্পনা করিনি। এরমধ্যে প্রায় ৩০ হাজার টাকা মত ক্ষতি হয়েছে।

বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গেছে চকবাজারের কাঁচাবাজার। ছবি: সোহেল সরওয়ার/বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

তবে বাজারের পাশের উঁচু জায়গায় সবজির খাঁচাগুলো সরিয়ে কয়েকজন ব্যবসায়ীকে বিক্রি করতে দেখা গেছে। এর মধ্যে বরবটি আর শিম কেজিতে বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকায়, টমেটো ২৫ টাকা আর আলু কেজিতে বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকা।

সবজির বাজারে স্থিতিশীল থাকলেও মাংসের বাজারে দাম বেড়েছে। গরুর মাংস কেজিতে বিক্রি হচ্ছে ৬০০ টাকা, যা আগের সপ্তাহে ৫৮০ টাকা ছিল। ছাগলের মাংস কেজিতে ৭০০ টাকা, দেশি মুরগি ৩৭০ টাকা ও ফার্মের মুরগি ১৬০ টাকা। যা কেজিতে ১০ থেকে ২০ টাকা থেকে বেড়েছে।

মাংস ব্যবসায়ী আবুল কাশেম বাংলানিউজকে বলেন, গরু বাজারজাত কম হওয়ায় বেশি দামে কিনতে হচ্ছে। তাই দাম বেড়েছে। কমার কোনো সুযোগ নেই বরং বাড়তে পারে।

বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গেছে চকবাজারের কাঁচাবাজার। ছবি: সোহেল সরওয়ার/বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

এদিকে বাজারের রাস্তায় বৃষ্টির পানি যেন জমে থাকতে না পারে এজন্য কয়েকমাস আগে নগরীর চকবাজার থেকে রাহাত্তারপুল পর্যন্ত সড়কটি বেশ উঁচু করা হয়। রাস্তার দু’পাশে বাঁধও দেয়া হয়। কিন্তু শুক্রবার (২১ এপ্রিল) মাত্র দু’ঘণ্টার বৃষ্টিতে রাস্তার কোনো চিহৃও নেই। পানিতে ডুবে চকবাজার যেন পরিণত হয়েছে ছোট্ট এক দ্বীপে!

বড়মিয়া মসজিদের বাসিন্দা মো.নুরু মিয়া বাংলানিউজকে বলেন, ড্রেন ও খাল পরিষ্কার না করার কারণে রাস্তা উঁচু করার পরও পানি জমে গেছে। রাস্তায় যত উন্নয়ন করুক আগে খাল খনন করে তা পরিষ্কার করতে হবে। আমাদের আর্তনাদ কি মেয়র মহোদয় শুনবেন।

বাংলাদেশ সময়: ১২০২ ঘণ্টা, এপ্রিল ২১, ২০১৭
জেইউ/আইএসএ/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

FROM AROUND THE WEB
Loading...
Alexa