Alexa
ঢাকা, শুক্রবার, ১০ আষাঢ় ১৪২৪, ২৩ জুন ২০১৭

bangla news

‘বীর মুক্তিযোদ্ধা ভবন’ নির্মাণকাজ শুরু করল চসিক

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০৪-২০ ৮:২৮:৪৮ পিএম
‘বীর মুক্তিযোদ্ধা ভবন’ নির্মাণকাজের উদ্বোধন করেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

‘বীর মুক্তিযোদ্ধা ভবন’ নির্মাণকাজের উদ্বোধন করেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

চট্টগ্রাম: সরকারের পাশাপাশি চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন গৃহহীন মুক্তিযোদ্ধাদের পুনর্বাসনের লক্ষ্যে ‘বীর মুক্তিযোদ্ধা ভবন’ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। চসিকের অর্থায়নে এ বছর বিভিন্ন ওয়ার্ডের ১০ জন মুক্তিযোদ্ধার ঘর তৈরি করে দেওয়া হবে।  

বৃহস্পতিবার (২০ এপ্রিল) বিকেলে নগরীর উত্তর কাট্টলী মরহুম মৌলানা তমিজুর রহমানের বাড়িতে ‘বীর মুক্তিযোদ্ধা ভবন’ নির্মাণকাজের উদ্বোধন করেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

এ উপলক্ষে আয়োজিত বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সুধী সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন চসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুদ্দোহা। অনুষ্ঠানে নগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের জেলা কমান্ডার মো. সাহাবউদ্দিন, মহানগর কমান্ডার মোজাফফর আহমদ, নগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা সফর আলী, শেখ মাহমুদ ইসহাক, চট্টগ্রাম মঞ্চ সম্পাদক সৈয়দ উমর ফারুক, প্যানেল মেয়র নিছার উদ্দিন আহমদ মঞ্জু, নগর আওয়ামী লীগের সদস্য বেলাল আহমদ, কাউন্সিলর সালেহ আহমদ চৌধুরী, জহুরুল আলম জসিম, হাসান মুরাদ বিপ্লব, আবিদা আজাদ, মেয়রের একান্ত সচিব মোহাম্মদ মঞ্জুরুল ইসলাম,  আকবরশাহ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান আহমদ, সাধারণ সম্পাদক কাজী আলতাফ হোসেন, ১০ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক জসিম উদ্দিন চৌধুরী, হাবিবুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম ইলিয়াছের ছেলে হুমায়ুন কবির বক্তব্য দেন।

আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধারা দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তান। তাদের অনেকেই আজও মানবেতর জীবনযাপন করছেন। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সর্বোচ্চ সম্মান দিয়ে তাদের জীবনমান উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন।

তিনি বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের মৃত্যুর পর রাষ্ট্রীয় মর্যাদা, মাসিক ভাতা প্রদান, পুনর্বাসন, সন্তানদের সরকারি কোটায় চাকরি প্রদানসহ নানাভাবে মুক্তিযোদ্ধাদের প্রণোদনা দিচ্ছে সরকার।

মেয়র বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের পরিবারের সন্তানদের পিতার পদাঙ্ক অনুসরণ করে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে সুনাগরিক হতে হবে। দুঃখের বিষয় অনেক মুক্তিযোদ্ধার সন্তান কারণে-অকারণে বিপথে পা দিচ্ছে যা কারও কাম্য নয়।

মেয়র তার ভিশন তুলে ধরে বলেন, নগরবাসী তাকে নির্বাচিত করেছে সেবার জন্য। মেয়র পদকে ব্যবহার করে ভাগ্য পরিবর্তন করার জন্য নয়। চট্টগ্রাম নানাদিক থেকে গুরুত্বপূর্ণ একটি এলাকা। এ চট্টগ্রামে কাঙ্ক্ষিত উন্নয়নের পথে যুগে যুগে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে চট্টগ্রামকে পেছনে ফেলে রাখা হয়েছে। আজ সুযোগ এসেছে মাথা উচুঁ করে দাঁড়াবার। তাই চট্টগ্রামের উন্নয়নে নানামুখী কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

১০ মুক্তিযোদ্ধার বাড়ি তৈরি করছে চসিক

বাংলাদেশ সময়: ১৯৫০ ঘণ্টা, এপ্রিল ২০, ২০১৭

এআর/টিসি

 

 

 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

You May Like..
Alexa