[x]
[x]
ঢাকা, রবিবার, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৪, ১৯ নভেম্বর ২০১৭

bangla news

শেষ ফাগুনে শীতের কামড়!

এম.আব্দুল্লাহ আল মামুন খান, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০৩-১৪ ৩:২০:৪১ এএম
শ্রমজীবী জনগোষ্ঠী কান ঢাকা টুপি, মাফলারের সঙ্গে আঁটোসাটো শীতের গরম কাপড় পরে সড়কে নেমেছেন। ছবি: অনিক খান

শ্রমজীবী জনগোষ্ঠী কান ঢাকা টুপি, মাফলারের সঙ্গে আঁটোসাটো শীতের গরম কাপড় পরে সড়কে নেমেছেন। ছবি: অনিক খান

ময়মনসিংহ: বসন্ত বাতাসে প্রকৃতি থেকে বিদায় নিয়েছিল শীত। মলিন পাতার রাশি ঝরিয়ে ফাগুনের আবেশে কোকিলের মধুর কুহুকুহু ডাক আর দখিনা হাওয়ায় বদলে গিয়েছিল প্রকৃতি। 

নতুনের আবাহনে, শীতের বিদায়ে গরম ভারী পোশাক ছাড়াই চলাচল শুরু করেছিলেন মানুষজন। কিন্তু হঠাৎ করেই ফাগুনের শেষ সময়ে আবারও কামড় বসিয়েছে শীত! 

দিন দুয়েক আগে মেঘ গুড় গুড় করা আকাশ থেকে ঝমঝম করে বৃষ্টি নেমেছিল। কমে এসেছিলে তাপমাত্রার পারদ। এরপরের সকালগুলোতে আকাশের মুখ গোমড়া থাকলেও আর বৃষ্টি হয়নি। 

শ্রমজীবী জনগোষ্ঠী কান ঢাকা টুপি, মাফলারের সঙ্গে আঁটোসাটো শীতের গরম কাপড় পরে সড়কে নেমেছেন। ছবি: অনিক খানদিন গড়াতেই ডানা মেলেছিল সোনারাঙা ঝকঝকে রোদ্দুর। কিন্তু সোমবার (১৩ মার্চ) ময়মনসিংহ শহরে সন্ধ্যা থেকে রাতে আবার কনকনে বাতাসের দাপটে মনে হলো, এই বুঝি ডানা ঝাপটে ফিরে এলো শীত!

প্রতিকূল আবহাওয়ায় যারা আগাম প্রস্তুতি নিয়ে বাড়ি থেকে বের হননি তারা পড়েছেন মহাবিপদে। তবে শ্রমজীবী জনগোষ্ঠী বা পথচারীরা ঠিকই কান ঢাকা টুপি, মাফলারের সঙ্গে আঁটোসাটো শীতের গরম কাপড় পরে সড়কে নেমেছেন।

রাত সাড়ে ৯টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত শহরের আমলা পাড়া, দুর্গাবাড়ি, গাঙ্গিনারপাড়, নতুন বাজারসহ বিভিন্ন পয়েন্ট ঘুরে আবহাওয়ার মেজাজ-মর্জিতে হঠাৎ পরিবর্তনের মধ্যে দিয়ে শীতের কামড় বসানোর ইঙ্গিত হাড়ে হাড়ে টের পাওয়া যাচ্ছিল।

শ্রমজীবী জনগোষ্ঠী কান ঢাকা টুপি, মাফলারের সঙ্গে আঁটোসাটো শীতের গরম কাপড় পরে সড়কে নেমেছেন। ছবি: অনিক খানদুর্গাবাড়ি রোড এলাকার একটি চায়ের দোকানের সামনে রিকশা রেখে কাপে চুমুক দেওয়ার ফাঁকে ফাল্গুনী শীতের আঁচ নিয়ে কথা বলছিলেন সিরাজুল ইসলাম, রফিকুল ইসলাম, জায়েদসহ কয়েকজন চালক। 

আচমকা শীতের এমন আবির্ভাবে সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘আবহাওয়ার কোনো মতি-গতি নাই। সারা রাত ভাড়া মারতে হবে। তাই জ্যাকেট আর কান টুপি পরে বেরিয়েছি।’ 

এ সময়টাতে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলোকে বেশ ফাঁকাই মনে হচ্ছিল।

খানিক অদূরেই স্থানীয় সৎসঙ্গ নামে একটি মন্দিরের সামনে দাঁড়ানো কয়েকজন মধ্য বয়সী চাকরিজীবী ফাল্গুনে আমেজে ভাটার টান নিয়েও রসিকতা করছিলেন। শ্রমজীবী জনগোষ্ঠী কান ঢাকা টুপি, মাফলারের সঙ্গে আঁটোসাটো শীতের গরম কাপড় পরে সড়কে নেমেছেন। ছবি: অনিক খানতাদের একজন বলেন, ‘সকাল থেকে সন্ধ্যা নাগাদ প্রকৃতি এক রকম। আর সন্ধ্যা হতেই আরেক রকম। ভোর বেলায় কুয়াশার দাপট। এমনই প্রকৃতিই জানান দেয় শীতের বিদায় ঘণ্টা বাজেনি এখনো।’

বছরের অন্যান্য বার এ সময়টাতে হাওয়ায় গরম গরম ভাব থাকে। কিন্তু এখন কনকনে ঠাণ্ডা ভাব পেয়ে বসেছে। ফাগুনের স্বাভাবিকতাকে হটিয়ে মাথা তোলার চেষ্টা করছে যেন শীত! টেরই পাওয়ার জো নেই গ্রীষ্মের আভাস।

আবহাওয়া সচেতন একজন বললেন, ‘পঞ্জিকার অনুশাসন মেনে শীত পড়ে না। বিদায়ও নেয় না।’

বাংলাদেশ সময়: ০৩১১ ঘণ্টা, মার্চ ১৪, ২০১৭ 
এমএএএম/এইচএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

FROM AROUND THE WEB
Loading...
Alexa