Alexa
ঢাকা, সোমবার, ৬ চৈত্র ১৪২৩, ২০ মার্চ ২০১৭
bangla news
symphony mobile

শুকনো-ঝরাপাতার মতো পানসি প্রজাপতি 

বিশ্বজিৎ ভট্টাচার্য বাপন, ডিভিশনাল সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০২-১২ ৭:৩৬:৪৭ পিএম
ছবি: রাজীন চৌধুরী-বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: রাজীন চৌধুরী-বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার): দেখতে অনেকটা শুকনো পাতার মতো। ঝরাপাতাদের দলে মিশে থাকলে খুঁজে পাওয়া কঠিন। শীত মৌসুমে উড়ে এসে মাটিতে বসে রোদের উত্তাপ গায়ে মাখতে থাকে। এ প্রজাপতির নাম উসুম। ইংরেজি নাম লেমন পানসি।

উসুম খুব চটপটে স্বভাবের। কেউ এগিয়ে আসতে দেখলেই ‘দে-ছুট’। ডানা ভর করে হারিয়ে যায় দূরে। শীতকালে নিচু ঝোপের পাতায় অথবা মাটিতে এদের রোদ পোহাতে দেখা যায়। ফুলের মধু খেয়ে জীবন ধারণ করে। 

প্রজাপতি গবেষক অমিত কুমার নিয়োগী বাংলানিউজকে বলছিলেন,  উসুমের বৈজ্ঞানিক নাম Junonia lemonias। বিশ্বে এ ধরনের প্রায় ৩৩টি প্রজাতির প্রজাপতি রয়েছে। বাংলাদেশে মোট ছয় প্রজাতির পানসি পাওয়া যায়। এগুলো হলো- টুয়া (ব্লু পানসি), রোয়াল (হলুদ পানসি), নয়ন (পিকক পানসি), চাঁদনরি (ধূসর পানসি), খৈরি (চকলেট পানসি) ও উসুম (লেমন পানসি)। 

নিম্ফালিডি পরিবারের অন্তর্ভুক্ত উসুম বাংলাদেশের সব এলাকায় পাওয়া যায়। তবে এদের সাধারণত নিম্নভূমি, বাগান, পত্রঝরা বন, জাতীয় উদ্যান, পতিত জমি ইত্যাদি আবাসস্থলে বেশি দেখা যায়। শীতকালে এদের প্রাচুর্য বাড়ে বিশেষ করে বরেন্দ্র ও সিলেট অঞ্চলে। এরা ঝিন্টি বা Bluebell barleria (Barleria cristata) গাছে ডিম পাড়ে।

উসুমের শারীরিক বর্ণনা দেন অমিত। বলেন, উসুমের পাখার ব্যস ৪৫-৬০ মিলিমিটার। পুরুষ ও মেয়ে উভয়েরই ডানার ওপরের রঙ গাঢ় বাদামী। সম্মুখ পাখনায় ওপরের দিকে কালোর ভেতরে সাদা সাদা বিভিন্ন আকৃতির দাগ রয়েছে। সম্মুখ ও পশ্চাৎ- উভয় পাখনার প্রান্তে কালো রঙ অঙ্কিত। উসুমের চারটি পাখনায় সর্বমোট ছয়টি গোল আকৃতির চক্ষু স্পট রয়েছে। যার মধ্যে চারটি বড় ও দু’টি ছোট, এই স্পটগুলোতে ফ্যাকাশে নীল ও কালো রঙকে বেষ্টিত করে রেখেছে কমলা রঙ। পাখানার অনবরত নড়াচড়া এই চক্ষু স্পটগুলো উসুমকে শত্রুর হাত থেকে রক্ষা করে। 

প্রকৃতি সংরক্ষণ বিষয়ক আন্তর্জাতিক ইউনিয়ন (আইইউসিএন) ২০১৫ সালে তাদের বিপন্ন প্রাণীর ‘লাল-তালিকা’য় এই প্রজাপতিকে বাংলাদেশে ন্যূনতম বিপদগ্রস্ত (LC) বলে ঘোষণা করে।

বাংলাদেশ সময়: ১৯২২ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৭ 
বিবিবি/এইচএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

You May Like..