[x]
[x]
ঢাকা, রবিবার, ৭ শ্রাবণ ১৪২৫, ২২ জুলাই ২০১৮

bangla news

পর্দা উঠলো ঢাকা লিট ফেস্টের, সাহিত্যানুরাগীদের ভিড়

ফিচার রিপোর্টার | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-১১-১৬ ২:৩১:০৪ পিএম
মণিপুরী নৃত্যের তালে ঢাকা লিট ফেস্টের উদ্বোধন/ছবি: দেলোয়ার হোসেন বাদল

মণিপুরী নৃত্যের তালে ঢাকা লিট ফেস্টের উদ্বোধন/ছবি: দেলোয়ার হোসেন বাদল

ঢাকা: অঘ্রাণের হিম সকালের অনাহুত বৃষ্টি তখন ছুঁয়ে যাচ্ছে সবাইকে। সে বৃষ্টিকে উপেক্ষা করেই বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে হাজির সাহিত্যানুরাগীরা। তাদের মণিপুরী নৃত্যের তালে তালে সাদর সম্ভাষণে বরণ করে নিলো ঢাকা লিট ফেস্ট।

একটু পরেই মঞ্চে এলেন ঢাকা লিট ফেস্টের অন্যতম পরিচালক সাদাফ সাজ। সবার উদ্দেশ্যে বলেন, তিন দিনব্যাপী ঢাকা লিট ফেস্ট সাহিত্যনুরাগীদের চিন্তা, স্বাধীনাতা ও স্বাধীনাতা উদযাপনের। এ উৎসব নিজেদের চিন্তার জগৎকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দেওয়া ও অন্যদের নিত্যনতুন ভাবনায় সমৃদ্ধ হওয়ার একটি জায়গা। এ আয়োজন আমাদের প্রতিটি শব্দের, সৌন্দর্যের শক্তি স্মরণ করিয়ে দেবে।

বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। 

আরেক পরিচালক কাজী আনিস আহমেদ বলেন, এ আয়োজন যতটা সাহিত্যনুরাগীদের, তার থেকে বেশি বাংলা ভাষা উদযাপনের। বাংলা ভাষাকে বিশ্বব্যাপী আরো ছড়িয়ে দিতে পারলে তবেই এ ভাষার সমৃদ্ধি ঘটবে।

দুপুরে আয়োজনের উদ্বোধন করেন বর্তমান সময়ের অন্যতম অ্যারাবিয়ান কবি অ্যাডোনিস। এসময় মঞ্চে আরো উপস্থিত ছিলেন ঢাকা লিট ফেস্টের পরিচালক সাদাফ সাজ, আহসান আকবর, কাজী আনিস আহমেদ, বাংলা একাডেমির পরিচালক শামসুজ্জামান খানসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিরা। 

সপ্তমবারের এ উৎসবে ২৪টি দেশের ৭৫ জন সাহিত্যিক অংশ নিচ্ছেন। তিন দিনব্যাপী এ আয়োজনে প্রতিদিন তারা নিজেদের সাহিত্য ভাবনা উপস্থাপন করবেন।

অনুষ্ঠানে বাংলা একাডেমির পরিচালক শামসুজ্জামান খান বাংলা ভাষা, বাঙালি, বাংলা ভাষার ইতিহাস, মুক্তিযুদ্ধ ও একুশে বইমেলা সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেন। তিনি বলেন, বর্তমান সময়ের তারুণ্য যে কতটা দীপ্ত, তার প্রমাণ এ আয়োজন। অঘ্রাণের সকালে এ উৎসব সত্যিই সবার কাছে স্মরণীয় হয়ে থাকবে বলে আশা রাখছি।

এসময় তিনি সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূরের অনুপস্থিতিতে তার লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন। উৎসবে আমন্ত্রিত অতিথিদের শুভেচ্ছা জানিয়ে মন্ত্রী লিখিত বক্তব্যে বলেন, আন্তর্জাতিক মানের এ সাহিত্য উৎসব বাংলা ভাষা ও তার সাহিত্য-সংস্কৃতিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার এক দৃঢ় প্রত্যয়।

উদ্বোধনের পর কবি অ্যাডোস বলেন, বিশ্বের অন্যতম এ সাহিত্য আয়োজনে সবাইকে স্বাগত।

বাংলাদেশ সময়: ১৪২১ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৬, ২০১৭
এইচএমএস/এএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa