banglanews24.com lifestyle logo
 
 

স্টোরেজ ব্যবস্থা

ফারজানা গাজী

বাড়ির কাজকর্ম সব সময়ই কর্মজীবী নারীদের কাছে একটা বড় সমস্যা। অফিস থেকে ক্লান্ত হয়ে বাড়ি ফিরে স্বামী-স্ত্রী দুজনেই খোঁজেন আরাম কিন্তু সংসারের চাহিদা থেকে ছুটি পাওয়া তো সহজ নয়। তাই প্রতিদিনের দৌড় ঝাঁপের মাঝেও নিজেকে ফ্রেশ রাখার পাশাপাশি অন্দরে রাখুন স্নিগ্ধতা ও পরিছন্নতার ছোঁয়া।

বাড়ি ঘর ছোট হোক বা বড়, কর্মব্যস্ত নারীদের একটি প্রধান সমস্যা হয়ে দাঁড়ায় যখন প্রয়োজনীয় জিনিস সব  গুছিয়ে রাখার স্থান সংকুলান হয় না।

তাই ঘরের জিনিস সঠিক ভাবে গুছিয়ে রাখার জন্য চাই সঠিক স্টোরেজ ব্যবস্থা।

ক্যাবিনেট এবং স্টোরেজের সঠিক ব্যবহারে ঘরের শৈল্পিকতা ফিরে আসবে। সঠিক স্টোরের স্পেস প্ল্যানই করে দেবে আপনার সমস্ত সমস্যার সমাধান। স্টোরেজের স্পেস প্ল্যান করার সময় অবশ্যই সেটা ফাংশনাল হতে হবে এবং আপনার বাড়ির অন্দরসজ্জার সাথে যেন মানিয়ে যায় সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে।

পুরোনো অনেক বাড়িতেই আগে একটা আলাদা ঘর থাকত স্টোর রুম হিসেবে। কিন্তু বর্তমানে বেশিরভাগ মানুষই থাকেন ফ্ল্যাটে আর যাদের বাড়ি আছে তাদের পক্ষেও একটা ঘর শুধুমাত্র স্টোরেজের জন্য রাখা সম্ভব হয় না। তাই সময়ের পরিবর্তনের সাথে সাথে জরুরি হয়ে পড়েছে স্পেস সেভিং এবং ফ্যাশনেবল স্টোরেজ কনসেপ্ট।

আপনি লিভিং রুমে বানিয়ে নিতে পারেন একটি ক্যাবিনেট। ক্যাবিনেটের একটা অংশ পুরো কাভারড করে দিতে পারেন যেখানে আপনি রাখতে পারেন বেশ কিছু প্রয়োজনীয় জিনিস আর বাকী অংশে কাচের পাল্লা দিয়ে তাতে রাখতে পারেন বিভিন্ন ধরনের শোপিস।

বেডরুমে যাতে অকারণে ফ্লোর স্পেস নষ্ট না হয় তাই দেয়াল জোড়া ক্যাবিনেট বানিয়ে নিন আর তার সঙ্গে ড্রেসিং ইউনিটও তৈরি করে ফেলুন। কেবিনেটের পাল্লা দেখলে প্রথমে মনে হবে যেন শুধুই একটা আয়না। কিন্তু এটি খুললেই দেখতে পাওয়া যাবে কসমেটিক স্টোরেজ ইউনিট।

স্টাডি রুমে ক্যাবিনেটের একপাশে রাখতে পারেন স্টাডির ব্যবস্থা এবং অন্যপাশে বুক শেলফ। এছাড়া খাটের নিচে করে নিন বক্স স্টোরেজের ব্যবস্থা।

ডাইনিং রুমে বানিয়ে নিতে পারেন কাভার্ড সাইডবোর্ড। সেখানে আপনি আপনার কোকারিজগুলোকে সযত্নে রেখে দিতে পারেন। আজকাল অনেক বাড়িতেই ওয়াল ইউনিটের ব্যবস্থা থাকে। সেটাও জায়গা বাচানোর একটা দারুণ উপায়। বেশ ভাল অপশনও স্টোরেজের জন্য।

বাথরুমেও প্রয়োজন সঠিক স্টোরিং। আজকাল অনেক ক্যাবিনেট বেসিন কিনতে পাওয়া যায়। আর যদি নিজে স্টোরেজের ব্যবস্থা করে নিতে চান সেক্ষেত্রে বেসিন কাউন্টারের নিচে ওয়াটারপ্রুফ মেটেরিয়াল দিয়ে স্টোরেজ বানিয়ে নিন।

বাথরুমের ফলস ছাদেও করতে পারেন স্টোরিং এর ব্যবস্থা। ফলস ছাদে অনেক সময় ড্যাম্প ধরে তাই এর ফ্লোর এবং পাশের ওয়ালগুলোতে কম দামি টাইলস লাগিয়ে নিতে পারেন অথবা করে নিতে পারেন নেট ফিনিশিং। 

অযথা স্টোরিং নিয়ে আর চিন্তা না করে, নিজের প্রয়োজন আর পছন্দ মতো বানিয়ে নিন কাস্টমাইজড স্টোরিং ইউনিট।

ফারজানা গাজী
স্বত্তাধীকারি ও ডিজাইনার
ফারজানাস ব্লিস্ 
info@farzanasbliss.com

comments powered by Disqus
Bookmark and Share
 
© 2014, All right ® reserve by banglanews24.com